লিজিয়ন-পাঠক প্রতিক্রিয়া ৩

ব্র্যান্ডন স্যান্ডারসনের সাইফাই মিস্ট্রি থ্রিলার লিজিয়ন বইটি পড়েছেন নিশাত আনজুম সেমন্তী। একটা রিভিউও পাঠিয়েছেন।

সেমন্তীর রিভিউ

বইঃ লিজিয়ন
লেখকঃ ব্র্যান্ডন স্যান্ডারসন
অনুবাদঃ মহিউল ইসলাম মিঠু
প্রকাশক বইটই, সেইবই।

প্রচ্ছদ: মহিউল ইসলাম মিঠু

বই- লিজিয়ন
লেখক- ব্যান্ডন স্যান্ডারসন
অনুবাদক- Moheul Islam Mithu
পৃষ্ঠা-১২০

স্পয়লার অ্যালার্ট

যারা থ্রিলার এবং রহস্যের গল্প চান তাদের জন্য অসাধারণ একটি বই। অ্যাকশনে ভরপুর গল্পটি । এই উপন্যাসে, একটি সমস্যায় পড়ে থাকা মাস্টারমাইন্ড তার ক্ষমতার প্রকাশকে হ্যালুসিনেট করে বিভিন্ন চরিত্রে। এই কল্পনার লোকেরা অন্য সবার কাছে দুর্ভেদ্য, তবে এই কল্পনার চরিত্রগুলো পরামর্শ দিয়ে সহায়তা করে স্টিফেন লিডসকে বিভিন্ন জটিল সমস্যা সমাধানে। এখানে একটি ক্যামেরা খোঁজার কেস নিয়ে রহস্যভেদ করতে মি. লিডস এগিয়ে চলেন, যেই ক্যামেরাটি আসলে অতীতের ছবি অর্জন করতে পারে।
এই গল্পটি আমেরিকার পরিচিত পরিবেশ থেকে শুরু করে প্রাচীন, বিভক্ত জেরুজালেম পর্যন্ত রয়েছে। গল্পে লেখক জটিল প্রশ্নগুলির এক প্রবল ভাণ্ডারকে স্পর্শ করেছেন: সময়ের প্রকৃতি, মানুষের মনের রহস্য, প্রযুক্তির সম্ভাব্য ব্যবহার এবং রাজনীতি এবং বিশ্বাসের মধ্যে অস্থির সংযোগ নিয়ে।

আমার ভাবনা

অনুবাদ পড়তে গেলে যেটা ভাবাই তা হলো মূল লেখার অনুভূতিটা পাবো কি না? লেখকের অনুবাদ পড়ে এই সমস্যায় পড়তে হয়নি। কিছু জায়গায় দুই একটি ইংরেজি শব্দ রেখে দেওয়াকে সাহিত্যবোদ্ধারা কি নজরে দেখবেন জানিনা, তবে পাঠক হিসেবে এটা অনেক সহজ করে দিয়েছে বুঝতে। ফ্লুয়েন্টলি পড়ে যাওয়া সহজ হয়েছে। (আমি মূল বইয়ের কয়েক পেজ পড়ে নিই অনুবাদ পড়ার আগে)

তথ্য-
বইটি প্রায় ৩০ টি দেশে ৩৫ টি ভাষায় অনুদিত হয়েছে।
বইটি পাবেন বইটই • Boitoi এপে

লিজিয়ন বইটির ব্যাপারে সব বিস্তারিত, বইয়ের প্রথম অধ্যায়, অন্যান্য পাঠকদের প্রতিক্রিয়া সহ সবকিছু পাবেন এখানে: লিজিয়ন বই পরিচিতি

Author: Moheul I Mithu

মহিউল ইসলাম মিঠু কৌতুহলী মানুষ। জানতে ভালোবাসেন। এজন্যই সম্ভবত খুব অল্প বয়সেই বইয়ের প্রতি ভালোবাসা জন্মায়। পড়ার অভ্যাসটাই হয়তো ধীরে ধীরে লেখার দিকে ধাবিত করেছিল। তার পাঠকপ্রিয় অনুবাদ গুলোর মধ্যে রয়েছে: দি হবিট, দি লর্ড অফ দ্য রিংস, পার্সি জ্যাকসন, হার্ড চয়েসেজ, দি আইস ড্রাগন, লিজিয়ন, প্লেয়িং ইট মাই ওয়ে, দি আইভরি চাইল্ড ইত্যাদি। বাংলাদেশে প্রথমসারির জাতীয় পত্রিকা, সংবাদপত্র ও ওয়েবসাইটের জন্য লিখেছেন বিভিন্ন সময়। তিনি বাংলাদেশের প্রথম অনলাইন কিশোর-ম্যাগাজিন ‘আজবদেশ’র প্রতিষ্ঠাতা সদস্যদের একজন। বিশ্বখ্যাত ২০টির বেশি বই অনুবাদ করে বিভিন্ন স্তরের পাঠকের আস্থা অর্জন করেছেন, জিতে নিয়েছেন ভালোবাসা। তার অনুদিত কিছু বই বিভিন্ন সময় জাতীয় বেস্ট-সেলারের তালিকাগুলোতে ছিল। (লিখেছেন: লে: কর্নেল রাশেদুজ্জামান)

Share This Post On

Submit a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Share via
Copy link