লিজিয়ন-পাঠক প্রতিক্রিয়া ১

বইটির ব্যাপারে তার মতামত জানিয়েছেন তানভির আহমেদ ফাহিম

তানভির আহমেদ ফাহিমের রিভিউ

লিজিয়ন
মূলঃব্র‍্যান্ডন স্যান্ডারসন
অনুবাদঃমহিউল ইসলাম মিঠু


ব্র‍্যান্ডন স্যান্ডারসনের নভেলা সিরিজ লিজিয়ন এর প্রথম কিস্তি এই বইটি।অনুবাদ করেছেন আমাদের ভার্সিটিরই বড় ভাই Moheul Islam Mithu ভাই।


মূল চরিত্র স্টিফেন লিডস নিজেকে সিজোফ্রেনিক রোগী মনে করেন।তার রয়েছে অনেকগুলো হ্যালুসিনেশন। কিন্তু তার সম্পর্কে লোকজনের ধারণা তিনি অনেক জ্ঞানী লোক।নিজের ব্রেইনকে তিনি ভিন্ন ভাবে কাজে লাগাতে পারেন এবং অনেক কঠিন কাজও তিনি সহজে করতে পারেন।তার হ্যালুসিনেশনের মানুষ গুলো আবার একেকজন একেক কাজে পারদর্শী।

ঘটনার শুরু হয় একটি খাম পাওয়ার মাধ্যমে। আর খামের ভিতর রয়েছে একটি অতি প্রাচীন ছবি, বলতে গেলে ক্যামেরা আবিষ্কারেরও আগের।এর পরেরদিন পাওয়া গেল আরেকটি খাম তাতে জর্জ ওয়াশিংটন এর ছবি।অনেক লুকোচুরির পর সামনে এলো ছবি প্রেরক। জানালো তাদের কাছে এমন একটি ক্যামেরা আছে যেটি প্রাচীন ছবি তুলতে পারে।কিন্তু দূর্ভাগ্যবশত ক্যামেরাটি চুরি হয়ে গিয়েছে।এবং চুরি করেছে ক্যামেরার আবিস্কারক রাজন নিজেই। অতঃপর শুরু হলো খোজা। স্টিফেন লিডস কি পারবে রাজনকে খুজে বের করতে?কে আসল দোষী? রাজন নাকি তাকে যে ছবি পাঠিয়েছে সে?
থ্রিলার, বিজ্ঞান, কল্পবিজ্ঞান, ইতিহাস,একশন সব কিছুর মিশ্রণ এই ছোট্ট নভেলাটি।সাথে রয়েছে চমৎকার টুইস্ট।
অনুবাদ ছিল বেশ সুন্দর সাবলীল।অল্প কিছু বানান ভুল চোখে পড়েছে আর দুই তিন জায়গায় চরিত্রের নামে ভুল হয়েছে আশা করি সেগুলো শীঘ্রই ঠিক করে ফেলা হবে। এবং সিরিজের পরবর্তী বইগুলোর অনুবাদের জন্য আগ্রহ প্রকাশ করছি।মিঠু ভাই যদিও আপনি লর্ড অব দ্য রিংস এর অনুবাদ নিয়ে ব্যস্ত।অনেক অনেক শুভকামনা রইলো ভাই।

লিজিয়ন বইটির ব্যাপারে সব বিস্তারিত পাবেন এখানে: লিজিয়ন বই পরিচিতি

Author: MIM

মহিউল ইসলাম মিঠু কৌতুহলী মানুষ। জানতে ভালোবাসেন। এজন্যই সম্ভবত খুব অল্প বয়সেই বইয়ের প্রতি ভালোবাসা জন্মায়। পড়ার অভ্যাসটাই হয়তো ধীরে ধীরে লেখার দিকে ধাবিত করেছিল। বাংলাদেশে প্রথমসারির জাতীয় পত্রিকা, সংবাদপত্র ও ওয়েবসাইটের জন্য লিখেছেন বিভিন্ন সময়। তিনি বাংলাদেশের প্রথম অনলাইন কিশোর-ম্যাগাজিন ‘আজবদেশ’র প্রতিষ্ঠাতা সদস্যদের একজন। অনেকগুলো জনপ্রিয় বই অনুবাদ করে বিভিন্ন স্তরের পাঠকের আস্থা অর্জন করেছেন, জিতে নিয়েছেন ভালোবাসা। তার অনুদিত কিছু বই বিভিন্ন সময় জাতীয় বেস্ট-সেলারের তালিকাগুলোতে ছিল।

Share This Post On

Submit a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Share via
Copy link